বাংলাদেশ দুর্নীতির সূচকে ২ ধাপ পিছিয়েছে : টিআইবি

60

অনলাইন ডেস্কঃ বিশ্বে দুর্নীতির ধারণা সূচক (সিপিআই)-২০২৩ অনুযায়ী ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ দুই ধাপ পিছিয়ে ১৪৯তম স্থানে নেমে এসেছে।

মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) ধানমন্ডি কার্যালয়ে সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান এ তথ্য তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, “দুর্নীতির ধারণা সূচক-২০২৩, বাংলাদেশ ১০০ -এর মধ্যে ২৪ তম স্কোর পেয়েছে।সিপিআই অনুযায়ী ২০২২ সালের তুলনায় এ বছর বাংলাদেশের স্কোর এক পয়েন্ট কমে ২৪- এ দাঁড়িয়েছে।”

ক্রমানুসারে ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান যৌথভাবে ১০ তম এবং আরোহণ ক্রমে ১৪৯তম। জরিপের ফলাফলে ১০০ এর মধ্যে ৯০ স্কোর নিয়ে ডেনমার্ককে সর্বনিম্ন দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ হিসাবে তালিকার শীর্ষে রাখা হয়েছে।

এছাড়া, ৮৭ স্কোর নিয়ে ফিনল্যান্ড দ্বিতীয় ও ৮৫ স্কোর নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে নিউজিল্যান্ড।

এদিকে, সবচেয়ে কম ১১ স্কোর পেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে সোমালিয়া।আর, ১৩ স্কোর নিয়ে যৌথভাবে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে দক্ষিণ সুদান, সিরিয়া ও ভেনেজুয়েলা।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “আমাদের পারফরম্যান্স হতাশাজনক ও বিব্রতকর।” এদিকে সরকার এই প্রতিবেদনকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অভিহিত করে প্রত্যাখ্যান করেছে।

টিআইবি’র বিজ্ঞপ্তি

এদিকে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, বার্লিনভিত্তিক ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআই) কর্তৃক প্রকাশিত দুর্নীতির ধারণা সূচক (সিপিআই) ২০২৩-এ বাংলাদেশের স্কোর ২০২২ এর তুলনায় ০-১০০ স্কেলে এক পয়েন্ট কমে ২৪ এবং নিম্নক্রম ও ঊর্ধ্বক্রম অনুযায়ী অবস্থানের দুই ধাপ অবনতি হয়ে ১৮০টি দেশের মধ্যে যথাক্রমে ১০ম ও ১৪৯তম।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্কোর ও অবস্থানের এই অবনমন প্রমাণ করে যে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে শূন্য সহনশীলতার ঘোষণাসহ সরকারের বিভিন্ন অঙ্গীকার; সূচকের তথ্যের সময়কালে (নভেম্বর ২০২০- সেপ্টেম্বর ২০২৩) বাস্তবিক অর্থে কোনো কার্যকর প্রয়োগ হয়নি। বরং আইনের যথাযথ প্রয়োগ ও প্রাতিষ্ঠানিক দূর্বলতায় বাংলাদেশের অবস্থানের আরো অবনতি হয়েছে।

এ প্রেক্ষিতে কার্যকরভাবে সব ধরনের দুর্নীতির অপরাধের শাস্তি এবং ক্ষমতার ভারসাম্য নিশ্চিত করতে পাঁচ দফা সুপারিশ করেছে সংস্থাটি।

মঙ্গলবার টিআইবি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান জানান, “সিপিআই অনুযায়ী, বাংলাদেশের স্কোর ২০২২ সাল পর্যন্ত ২৫ থেকে ২৮ এর মধ্যে আবর্তিত ছিলো। কিন্তু ২০২৩ সালে বাংলাদেশ গত বছরের তুলনায় আরো এক পয়েন্ট কমে এক যুগের মধ্যে সর্বনিম্ন ২৪ স্কোর এবং নিম্নক্রম ও ঊর্ধ্বক্রম উভয় দিক থেকেই দুই ধাপ অবনমন হয়ে যথাক্রমে ১০ম ও ১৪৯তম অবস্থানে রয়েছে।”

তিনি বলেন, “টিআই কর্তৃক ২০১২ থেকে ২০২৩ মেয়াদের প্রবণতা বিশ্লেষণ (Trend Analysis) করে দেখা যায়, বাংলাদেশের এ বারের স্কোর সার্বিক ১২ বছরের গড় স্কোর ২৬ এর তুলনায় দুই পয়েন্ট কম এবং এই মেয়াদে সর্বনিম্ন।”

টিআইবির আউটরিচ অ্যান্ড কমিউনিকেশন বিভাগের পরিচালক শেখ মন্জুর-ই-আলম এর সঞ্চালনায়, সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন সংস্থার চেয়ারপার্সন অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল ও উপদেষ্টা- নির্বাহী ব্যবস্থাপনা অধ্যাপক ড. সুমাইয়া খায়ের।

 

ওবায়দুল কাদেরের প্রতিক্রিয়া

 

দুর্নীতির ধারণা সূচক নিয়ে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের (টিআই) প্রতিবেদনকে রাজনৈতিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, কোনো জোট বা দেশের স্বার্থ সংরক্ষণে করা এসব অপবাদকে সরকার পরোয়া করে না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “ক্ষমতায় বসে আনুষ্ঠানিকতা শেষে, কাজে মনোনিবেশ করছি।” ত্রুটিমুক্ত গণতন্ত্র পৃথিবীর কোথাও এখন নেই বলে উল্লেখ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

পূর্বের খবরনগদ সহায়তা হারানোর শঙ্কায় উদ্বিগ্ন পোশাক খাত
পরবর্তি খবরবাংলাদেশে তিস্তা ব্যারেজ নির্মাণ প্রকল্পে চীনের আগ্রহ থাকলেও ভারতের আপত্তি!