বাংলাদেশেশান্তিপূর্ণ, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রত্যাশা পুনর্ব্যক্ত যুক্তরাষ্ট্রেরঃ মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার

95
কূটনৈতিক প্রতিবেদকঃ  বাংলাদেশে রাজনৈতিক সহিংসতা নিয়ে কথা বলল যুক্তরাষ্ট্রের মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার, বাংলাদেশে রাজনৈতিক সহিংসতা নিয়ে প্রশ্নের জবাবে শান্তিপূর্ণ, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রত্যাশা পুনর্ব্যক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল মঙ্গলবার রাতে ওয়াশিংটনে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাশা তুলে ধরেন।
সংবাদ ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশি একজন সাংবাদিক মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্রের দৃষ্টি আকর্ষণ করে জানতে চান, বিএনপির সহিংসতার পথ বেছে নেওয়া কি বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে অবজ্ঞা করা?

জবাবে মুখপাত্র ম্যাথু মিলার বলেন, ‌আমরা বাংলাদেশে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চাই।  আমরা চাই, নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে হোক। এটিই আমাদের নীতিগত অবস্থান।

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির রাজনৈতিক সহিংসতার নিন্দা জানাবে কি না এ প্রশ্নের জবাবে ম্যাথু মিলার বলেন, ‌‘আমার মনে হয়, আমি এ প্রশ্নের জবাব ইতিমধ্যে দিয়েছি।’

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র এর আগেও বাংলাদেশ নিয়ে প্রশ্নের জবাবে শান্তিপূর্ণ, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রত্যাশা জানিয়েছেন। বাংলাদেশে রাজনৈতিক সহিংসতা নিয়ে যা বলল যুক্তরাষ্ট্র

বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আমাকে বারবার টানা হচ্ছে: মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার
বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে অব্যাহত প্রশ্নের মুখে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার বাংলাদেশি সাংবাদিককে বলেছেন, ‘আমি প্রশংসা করি, আপনি বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আমাকে বারবার টেনে নিচ্ছেন। আর আমিও তা করে যাচ্ছি।’

সোমবার রাতে ওয়াশিংটন ডিসিতে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের সংবাদ ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় তিনি বাংলাদেশে শান্তিপূর্ণ, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রত্যাশা পুনর্ব্যক্ত করেন।

ব্রিফিংয়ে দুজন বাংলাদেশি সাংবাদিক বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন করেন। প্রথমজন বাংলাদেশ সরকারকে কর্তৃত্ববাদী বলে অভিহিত করে অভিযোগ করেন, সংলাপে বসতে যুক্তরাষ্ট্রের আহবান সত্বেও বাংলাদেশ সরকার আবার এক তরফা নির্বাচনের দিকে এগুচ্ছে। বিরোধী নেতাকর্মীদের ধরপাকড়, অপহরণ করছে। যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে এক দলের কর্তৃত্বের বিরুদ্ধে কী উদ্যোগ নিচ্ছে?

জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার বলেন, যুক্তরাষ্ট্র কোনো বিশেষ দলকে সমর্থন করেনা।

শান্তিপূর্ণভাবে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন- বাংলাদেশের জনগণ যা চায় যুক্তরাষ্ট্রও তা চায়। বাংলাদেশের জনগণের স্বার্থে ওই লক্ষ্য অর্জনে একসঙ্গে কাজ করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশ সরকার, বিরোধী দল, নাগরিক সমাজসহ সব অংশীদারের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকবে।এরপর বাংলাদেশি আরেক সাংবাদিক বাংলাদেশ বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি ডোনাল্ড লু বড় তিন দলকে নিঃশর্ত সংলাপে বসার চিঠি দিয়েছেন। আগামী ৭ জানুয়ারি নির্বাচন।

৩০টিরও বেশি দল নির্বাচনে যাবার কথা ঘোষণা করেছে। কেবল বিএনপি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে। বিএনপির বর্জন কি নির্বাচনের অংশগ্রহণমূলক ও বৈধতাকে প্রশ্নের মুখে ফেলবে?জবাবে ম্যাথু মিলার বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে তাকে বারবার টেনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ‘আমি আগেই বলেছি, আমাদের লক্ষ্য, বাংলাদেশে শান্তিপূর্ণ অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন।’

পূর্বের খবরজাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০২৪: নৌকা পেলেই এমপি!
পরবর্তি খবরপরিকল্পিতভাবে বিএনপি নেতা-কর্মীদের কারাদণ্ড দিচ্ছে সরকার?