নতুন রেকর্ড গড়ে তুল্লেন বর্ষসেরা মেসি

96

খেলাধূলা ডেস্ক

একবার, দুইবার নয় – তৃতীয়বারের মতো ফিফার বর্ষসেরার পুরস্কার জয় করেছেন লিওনেল মেসি। সবচেয়ে বেশি ব্যালন ডি’অর জয়ের কীর্তি আগেই গড়েছিলেন, এবার ফিফা বেস্ট অ্যাওয়ার্ডেও একচ্ছত্র আধিপত্য মেসির। সোমবার রাতে লন্ডনে ফিফা বেস্ট অ্যাওয়ার্ডের অনুষ্ঠানে মেসি উপস্থিত না থাকলেও পুরস্কার তার হাতেই উঠেছে।

এছাড়া বর্ষসেরা পুরুষ কোচের পুরস্কার গেছে ম্যানচেস্টার সিটিকে ট্রেবল জেতানো পেপ গার্দিওলার ঝুলিতে। বর্ষসেরা পুরুষ গোলকিপারের পুরস্কারটিও গেছে সিটিজেনদের ঘরে, সিটি গোলকিপার এদেরসন পেয়েছেন বছরের সেরা শট-স্টপারের খেতাব।

ফিফা বেস্টের বর্ষসেরা পুরুষ ফুটবলারের পুরস্কার নিয়ে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে মেসি এবং আরলিং হালান্ডের মধ্যে। দুজনই এই পুরস্কারের দৌড়ে সমান ৪৮ পয়েন্ট পান।

তবে ফিফা বেস্ট অ্যাওয়ার্ডে রুলস অব অ্যালোকেশনের ১২ ধারা অনুযায়ী জাতীয় দলের অধিনায়কদের ভোট বেশি পাওয়ায় রেকর্ড তৃতীয়বারের মতো বর্ষসেরার পুরস্কার পান মেসি। এর আগে ২০১৯ এবং ২০২২ সালেও ফিফা বেস্টের বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জেতেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক।

বর্ষসেরা পুরুষ ফুটবলারের পুরস্কার নিয়ে সেয়ানে-সেয়ানে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হলেও সেরা কোচের পুরস্কারের রেস কোনো উত্তেজনা ছড়ায়নি। ম্যান সিটিকে ট্রেবল জিতিয়ে অন্য দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ইন্টার কোচ সিমোনে ইনজাঘি এবং নাপোলির সাবেক কোচ লুসিয়ানো স্পালেত্তির চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে ছিলেন গার্দিওলা। অনুমিতভাবে তার হাতেই উঠেছে সেরা কোচের পুরস্কার।

বেস্ট অ্যাওয়ার্ড জয়ের পর সিটি ফুটবলারদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন গার্দিওলা, ‘আট বছর ধরে এই খেলোয়াড়রা একসঙ্গে যা করেছে, এর জন্য তাদের ধন্যবাদ।’

সিটির ট্রেবলজয়ী মৌসুমে গোলমুখে অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকায় ছিলেন ব্রাজিলের এদেরসন। ২৮ পয়েন্ট নিয়ে বর্ষসেরা গোলকিপার হওয়ার পথে এদেরসন পেছনে ফেলেছেন রিয়াল মাদ্রিদের থিবো কোর্তোয়া (২০ পয়েন্ট) এবং মরক্কোর ইয়াসিন বোনোকে (১৬)।

এদেরসনের দেশ ব্রাজিলও বেস্ট অ্যাওয়ার্ডে পুরস্কৃত হয়েছে। গত জুনে গিনির সঙ্গে প্রীতি ম্যাচে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে প্রতীকী প্রতিবাদ হিসেবে নিজেদের হলুদ জার্সি বাদ দিয়ে কালো জার্সি পরে খেলেন ব্রাজিলের ফুটবলাররা।

পূর্বের খবরবিপিএলের টিকিট বিক্রি শুরু আজ থেকে, ২০০ টাকায় ২ ম্যাচ
পরবর্তি খবরনো-বলসহ নওয়াজকে অতিরিক্ত সুবিধা দিচ্ছেন ‘দুই আম্পায়ার’: ইমরান