‘ধান উৎপাদনে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে কৃষক ‘

142

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ দেশে এক লিটার পানির দাম ২০ টাকা, এক কেজি ধানের দাম ২০ টাকা। ১ কেজি ধান ফলাতে ধান চাষীকে ২২০০ লিটার পানি ঢালতে হয়। এমনি বাস্তবতায় কেউ আর জমি চাষ করতে চাইছে না। তার ওপর মরার উপর খারার ঘা, জমি ভর্তি বর্ষাকালীন জলজ আগাছা। এক একর জমির আগাছা পরিষ্কারের জন্য বিশ জন শ্রমিকের প্রয়োজন, ৭০০ টাকা মজুরি হিসেবে প্রয়োজন হচ্ছে ১৪ হাজার টাকা। তাই বিষ প্রয়োগে এই আগাছা পরিষ্কারের চেষ্টা করছি। প্রায় ছয় ইঞ্চি পুরু আগাছার স্তর, কোনটায় গ্লাইফোসেট , কোনটায় প্যারাকুয়েট, কোনটায় টু-ফোর-ডি প্রয়োগ করে আগাছা দমনের চেষ্টা করছি। একজন ধানচাষী হিসেবে এদেশের কৃষিবিদদের কাছে বিনীত আবেদন। হে কৃষিবিজ্ঞানীগণ আপনারা আমাদেরকে এমন একটা প্রযুক্তি দিন যাতে ২০ থেকে ৩০ দিনের মধ্যে এই আগাছাগুলো পচে জৈব সারের রূপান্তরিত হয়। তাতে আমরা ধান চাষীরা উপকৃত হব উপকৃত হবে দেশ।

No description available.

২০২১ -২০২২ অর্থ বছরে প্রতি কেজি ধানের উৎপাদন খরচ ছিল সর্বনিম্ন ২২ টাকা। কৃষক ধানের মৌসুমে বিক্রি করে পেয়েছে ২০ টাকা। প্রতি কেজি ধানে কৃষকের ক্ষতি হয়েছে দুই টাকা। ধান উৎপাদন হয়েছে দুই কোটি সাত লক্ষ টন। প্রতি কেজিতে দুই টাকা হিসেবে কৃষকের ক্ষতি হয়েছে ৫৪০০ কোটি টাকা। অতএব সারাদেশের কৃষকরা ধান উৎপাদন করতে গিয়ে ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

লেখক- প্রদীপ অধিকারী একজন কৃষক, টঙ্গী,গাজীপুর।

পূর্বের খবরনির্বাচন থেকে কীভাবে নেতাদের বিরত রাখছে বিএনপি
পরবর্তি খবরমারা গেলেন হেনরি কিসিঞ্জার