দেশে অস্বাভাবিক পরিস্থিতি সৃষ্টি করে নির্বাচন বানচালে ব্যস্ত বিএনপি: শেখ হাসিনা

76

নিউজ২১ডেস্কঃ বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপিকে নেতৃত্বহীন বলে উল্লেখ করেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, “আসন্ন জাতীয় নির্বাচন বানচাল করে অস্বাভাবিক পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায় বিএনপি। সোমবার (১৩ নভেম্বর) খুলনা সার্কিট হাউস মাঠে, আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, “তারা জানে যে তাদের কোনো নেতৃত্ব নেই। তারা মুণ্ডুহীন দল মাত্র। একজন পলাতক, আরেকজন কারাগারে রয়েছেন। ওই দল কোনো নির্বাচন করতে চায় না। তারা শুধু একটি অস্বাভাবিক পরিস্থিতি তৈরি করতে চায়।”

 

খুলনা সার্কিট হাউস মাঠে, আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশ। ১৩ নভেম্বর, ২০২৩।
খুলনা সার্কিট হাউস মাঠে, আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশ। ।

তিনি বলেন, “জাতীয় নির্বাচন আসন্ন এবং ভোটের সময় সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। বিএনপি-জামায়াত জানে ২০০৮ সালের নির্বাচনে তারা মাত্র ৩০ টি আসন পেয়েছিলো।” শেখ হাসিনা বলেন, “যে হাত যানবাহনে আগুন দেয়, সেই হাত একই আগুনে পুড়ে যাবে।”

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, “তাদের একটি উচিৎ শিক্ষা দিন, যাতে কেউ আর দেশের কারো ক্ষতি করার সাহস না পায়। এই ধরনের ঘটনা ফের ঘটতে দেয়া উচিত নয়।” প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় আসে; দেশের উন্নয়ন হয়, জনগণের কল্যাণ হয়। আর, এটা খুবই দুঃখজনক, বিএনপি সন্ত্রাসের সমার্থক। বিএনপি-জামায়াতের একমাত্র কাজ অগ্নিসংযোগের মাধ্যমে মানুষ হত্যা করা।”

শেখ হাসিনা বলেন, “সরকার ইতোমধ্যে অগ্নিসংযোগকারীদের গ্রেপ্তার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দেয়ার জন্য ২০ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছে। অগ্নিসংযোগের মাধ্যমে মানুষ হত্যার সঙ্গে জড়িত কাউকে আমরা ছাড় দেবো না।”

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “ধারাবাহিক গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া বাংলাদেশকে ব্যাপক উন্নয়ন করতে সাহায্য করছে, যা সবার কাছে দৃশ্যমান।”

পঞ্চম ধাপের অবরোধ ঘোষণা করেছে বিএনপি

এদিকে, বুধবার (১৫ নভেম্বর) থেকে সারাদেশে পঞ্চম দফায় ৪৮ ঘণ্টার সড়ক-রেল-নৌপথ অবরোধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি ও সমমনা রাজনৈতিক দলগুলো।

সোমবার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেন। আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতা ত্যাগে বাধ্য করতে এবং নির্দলীয় সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচনের অনুষ্ঠানের দাবি আদায়ের লক্ষ্যে অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করছে বিএনপি।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, “অন্যান্য রাজনৈতিক দল; যারা দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলন করে আসছে, তারাও একই ধরনের কর্মসূচি পালন করছে।” বুধবার (১৫ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে শুরু হয়ে, শুক্রবার (১৭ নভেম্বর) সকাল ৬টা পর্যন্ত সারাদেশে অবরোধ কর্মসূচি পালিত হবে বলে জানান রিজভী। এটি হবে তাদের অবরোধ কর্মসূচির পঞ্চম ধাপ।

ওদিকে, শনিবার (১১ নভেম্বর) বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি অভিযোগ করেছে যে আরেকটি ভুয়া ও একতরফা নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের ওপর দমন-পীড়ন চালাচ্ছে আওয়ামী লীগ সরকার।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী
বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী

শনিবার (১১ নভেম্বর) বিএনপির পক্ষে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, “ সরকার দেশে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। আওয়ামী লীগের ফ্যাসিবাদী সরকার অতীতের মতো একতরফা প্রহসনের নির্বাচন করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা জনগণের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে। সাধারণ মানুষ এখন যুদ্ধকালীন সময়ের মতো নীরব ভীতিকর পরিবেশে বসবাস করছে।”

ইউএনবি

পূর্বের খবরগোপনে কি অন্য কেউ আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করছে?
পরবর্তি খবরবাংলাদেশের নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্র কোনো পক্ষ নেবে না: ম্যাথিউ মিলার