উত্তরায় মসজিদে তাবলীগের মুসল্লিদের উপর অতর্কিত হামলা, তাবলীগ জামাতের দুপক্ষের মধ্যে মারামারি

111

উত্তরায় একটি মসজিদে অবস্থান করা নিয়ে তাবলীগ জামাতের দুপক্ষের মধ্যে মারামারি হয়েছে। এতে তাবলীগের বেশ কয়েকজন মুসল্লি আহত হয়েছেন। পরে পুলিশের মধ্যস্থতায় মসজিদ কমিটি ও তাবলীগ জামাতের দুই পক্ষের মধ্যে বৈঠক হয়। সেই বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত তাকওয়া মসজিদে তাবলীগের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

ঢাকাঃ রাজধানীর উত্তরায় তাকওয়া মসজিদের ভেতর তাবলীগ-জামাতে আসা মুসল্লিদের ওপর অতর্কিত হামলার ঘটনা ঘটেছে। রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টরস্থ রাজলক্ষী তাকওয়া মসজিদে এই ঘটনা ঘটে। এতে সোলেমান নামে এক মুসল্লি মারাত্মকভাবে আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।  পুরনো বিরোধকে কেন্দ্র করে রাজধানীর উত্তরায় মসজিদের ভেতরে তাবলিগ জামাতে আসা মুসল্লিদের ওপর হামলায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। গত রবিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে সংঘর্ষের আশঙ্কায় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তৎপর রয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রবিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টরের রাজলক্ষ্মী তাকওয়া মসজিদের ভেতরে অবস্থানকারী তাবলিগ জামাতের মুসল্লিদের ওপর অতর্কিতে হামলা চালায় একদল লোক।

উত্তরার তাকওয়া মসজিদে আগে থেকেই তাবলীগের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে মাওলানা জুবায়েরের অনুসারীরা। রোববার রাত ৮টার দিকে জামাত নিয়ে মসজিদে যেতে চায় মাওলানা সাদের অনুসারীরা। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি বেধে যায়। এ সময় নষ্ট করা হয় মুসল্লিদের সাথে থাকা লাগেজ ও রান্নার সামগ্রী। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হওয়ার দাবি করেছে মাওলানা সাদের সমর্থক মুসল্লিরা।

ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। তাকওয়া মসজিদের ভেতরে মাওলানা জুবায়েরের অনুসারীরা অবস্থান নেয়। আর বাইরে মাওলানা সাদের অনুসারীরা। এমন পরিস্থিতিতে মসজিদের ভেতরে দুপক্ষ, মসজিদ কমিটি ও পুলিশ বৈঠকে বসে। সেখানে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাকওয়া মসজিদে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে তাবলীগের কার্যক্রম।

পরিস্থিতি নিয়ে মাওলানা জুবায়েরের অনুসারী ও পুলিশ কথা বলতে রাজি হয়নি। প্রতি বছর ইজতেমা ঘিরে সাদ ও জুবায়েরের অনুসারীরা তাকওয়া মসজিদে থেকেই কার্যক্রম পরিচালনা করে। এ বছর ৪ থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি মাওলানা জুবায়েরের অনুসারী আর ৯ থেকে ১১ ফেব্রুয়ারি মাওলানা সাদের অনুসারীরা টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নেবেন।

তারা মুসল্লিদের মারধর করে। এতে অনেক মুসল্লি আহত হন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাঁদের মধ্যে সোলেমান নামের এক মুসল্লির অবস্থা গুরুতর। তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
https://youtu.be/QoZ9dM7zSOU
https://youtu.be/QoZ9dM7zSOU?t=20
পূর্বের খবরআদেশ বহাল গুলশান শপিং সেন্টার গুঁড়িয়ে দেওয়ার
পরবর্তি খবরবাবরি মসজিদ থেকে বিতর্কিত রাম মন্দির নির্মাণের আখ্যান